ঝালকাঠি জেলা আওয়ামীলীগ থেকে সাংগঠনিক সম্পাদক কেকাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্তে সভা

ঝালকাঠি জেলা আওয়ামীলীগ থেকে সাংগঠনিক সম্পাদক কেকাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্তে সভা

মো: মনির হোসেন, ঝালকাঠি থেকে :

ঝালকাঠি জেলা আওয়ামিলীগ এর সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য শারমিন মৌসুমি কেকার বিরুদ্ধে সংগঠন বিরোধী কার্যক্রমের অভিযোগে ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যরা শারমিন মৌসুমি কেকাকে দল থেকে বহিষ্কার করার জন্য সুপারিশ করেন।

বৃহস্পতিবার ২১ সেপ্টেম্বর জেলা আওয়ামীলীগের এক জরুরী সভায় জেলা আওয়ামী লীগ সদস্যরা সাংগঠনিক সম্পাদক শারমিন মৌসুমি কেকার বিভিন্ন অপকর্ম সহ সংগঠন বিরোধী কার্যক্রম তুলে ধরে ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যরা তাকে দল থেকে বহিষ্কার করার জন্য সুপারিশ করেন। জেলা আওয়ামীলীগ সদস্যদের সুপারিশ ক্রমে সংগঠন বিরোধী কার্যক্রম ও বিভিন্ন অপকর্ম করে জেলা আওয়ামী লীগের সুনাম ক্ষুন্ন করায়
শারমিন মৌসুমি কেকাকে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে পদ বঞ্চিত করা সহ দল থেকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত গ্রহন করে জেলা কমিটি।

উল্লেক্ষ্য, গত ৩০ আগস্ট এক নারীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় ও নির্যাতনের পরে চুল কেটে দেওয় শারমিন মৌসুমি কেকা,শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান তাপুকে সাথে নিয়ে। এঘটনায় ৬ জনের নামে ঝালকাঠি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা হয়। এছাড়া ঝালকাঠির সুগন্ধা পৌর আদর্শ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার ভেংগে ও খেলার মাঠ নষ্ট করে অবৈধভাবে বানিজ্যিক স্টল নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে শারমিন মৌসুমি কেকার বিরুদ্ধে।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শারমিন মৌসুমি কেকা বলেন, আমাকে রাজনৈতিক ভাবে হেনস্থা করার জন্য একটি কুচক্রি মহল এই ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তার করেছে, এসব ব্যাপারে আমি জড়িত নই এবং স্কুলের মাঠে যে স্টল নির্মান করা হয়েছে তা বৈধ্য ভাবেই বিধি অনুযায়ী নির্মান করা হয়েছে।

অপরদিকে সুশিল সমাজ শহিদ মিনার ভাংগার বিষয়ে ক্ষুদ্ব তারা মনে করেন যে, স্বাধীনতার পক্ষে ও স্বাধীনতা আন্দোলনের নেতৃত্ব দান কারী দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা কালিন সময় ভাষা শহিদের এই চড়ম অপমান সহ্য করার মত নয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

themesbazartvsite-01713478536